মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯

প্রস্তাবিত প্রকল্প

২০১৯-২০ অর্থ বছরের এডিপিতে প্রস্তাবিত বরাদ্দবিহীন অননুমোদিত নতুন প্রকল্পের সংক্ষিপ্ত সার

 

১।

মন্ত্রণালয়/বিভাগের নাম

:

 

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ।

২।

বাস্তবায়নকারী সংস্থা

:

 

ইলেক্ট্রনিক স্বাক্ষর সার্টিফিকেট প্রদানকারী কর্তৃপক্ষের নিয়ন্ত্রক (সিসিএ)-এর কার্যালয়।

৩।

সেক্টর

:

 

আর্থ-সামাজিক ভৌত অবকাঠামো

৪।

সাব-সেক্টর

:

 

আইসিটি

৫।

প্রকল্পের নাম

:

বাংলায়

বাংলাদেশের নিজস্ব নিরাপদ ব্রাউজার এবং সার্চ ইঞ্জিন উন্নয়ন।  

 

 

:

ইংরেজিতে

Development of Bangladesh’s own secured search engine and browser.

৬।

বাস্তবায়নকাল

:

 

জুলাই, ২০২১ হতে জুন, ২০২৬ পর্যন্ত।

৭।

প্রাক্কলিত ব্যয় (লক্ষ টাকায়)

:

 

মোট

জিওবি (বৈ:মু)

প্রকল্প সাহায্য (টাকাংশ)

প্রকল্প সহায্যের উৎস

৮০০০০.০০

-

-

জিওবি

 

৮।

অনুমোদন পর্যায়

:

 

প্রস্তাবিত নতুন প্রকল্প (সবুজ পাতায় অন্তর্ভুক্তির জন্য)

৯।

প্রকল্পের উদ্দেশ্য

:

 

ক) তথ্য সম্পদ সুরক্ষার নিমিত্ত বাংলাদেশের নিজস্ব ওয়েব ব্রাউজার উন্নয়ন;

খ) বাংলাদেশের নিজস্ব সার্চ ইঞ্জিন উন্নয়ন;

গ) ব্রাউজার ও সার্চ ইঞ্জিনের নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণ।

১০।

প্রকল্পের প্রধান প্রধান অঙ্গের বিবরণ

 

 

:

 

ক্রমিক নং

প্রধান অঙ্গের নাম

পরিমাণ (এককসহ)

অঙ্গের প্রাক্কলিত ব্যয় (লক্ষ টাকা)

1.

হার্ডওয়্যার

থোক

৩০০০০.00

2.

সফট্‌ওয়্যার

থোক

২০০০০.00

3.

পরামর্শক

3টি

৩০০০০ .০০

 

১১।

প্রকল্প এলাকা

:

 

ইলেক্ট্রনিক স্বাক্ষর সার্টিফিকেট প্রদানকারী কর্তৃপক্ষের নিয়ন্ত্রক (সিসিএ)-এর কার্যালয়, আইসিটি টাওয়ার, আগারগাঁও, ঢাকা-১২০৭।

১২।

বৈদেশিক সাহায্যপুষ্ট প্রকল্প হলে বৈদেশিক সাহায্যপ্রাপ্তির সর্বশেষ অবস্থা

:

 

প্রযোজ্য নয়।

১৩।

ইতিপূর্বে এডিপিতে অন্তর্ভূক্ত/

বরাদ্দবিহীন ভাবে সংযুক্ত ছিল কিনা

:

 

না

১৪।

সপ্তম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনা ও এসডিজি এর কোন লক্ষ্যমাত্রার সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ

:

 

সপ্তম পঞ্চবাষির্কী পরিকল্পনা (অধ্যায়-১২, পৃষ্ঠা ৫৫৮, আলোচ্যসূচি-১২.২: তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি এবং অর্থনৈতিক উন্নয়ন: অনলাইন লেনদেন এবং পেমেন্ট অবকাঠামো)-তে e-governance ব্যবস্থাকে নিরাপদ সুরক্ষিত করার জন্য ডিজিটাল স্বাক্ষর ব্যবহারের কথা বলা হয়েছে। নিরাপদ অনলাইন ট্রানজেকশন বহুলাংশে নির্ভর করে জাতীয় PKI সিস্টেম এর উপর। এ প্রকল্প বাস্তবায়নের মাধ্যমে সিসিএ কার্যালয় বাংলাদেশ রুট সিএ (PKI) বাংলাদেশ হিসাবে এ বিষয়ে দায়িত্বশীল কর্তৃপক্ষ। ওয়েব ব্রাউজার ও সার্চ ইঞ্জিন ব্যবহারে তথ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করা যাবে এবং বাংলাদেশের নিজস্ব তথ্য ভান্ডার উন্নয়ন করা হবে। এ প্রকল্পটি এসডিজি ১৭.৮.১ লক্ষ্যমাত্রা পূরণ করবে।

১৫।

দারিদ্র নিরসন ও কর্মসংস্থানের জন্য সরাসরি জড়িত কিনা

:

 

না

১৬।

জলবায়ু পরিবর্তন কার্যক্রম এর সাথে সম্পৃক্ত কিনা

:

 

না

১৭।

পিপিপি পদ্ধতিতে বাস্তবায়ন করা সম্ভব কিনা

:

 

না

১৮।

পিপিপি উদ্যোগে গৃহীত প্রকল্পের সহায়ক প্রকল্প কিনা

:

 

না

 

 

 

                                                                                                                        কর্মকর্তার স্বাক্ষরঃ  

                                                                                                                                           নামঃ আবুল মানসুর মোহাম্মদ সার্‌ফ উদ্দিন

                                                                                                                                        তারিখঃ ৯ এপ্রিল, ২০১৯

                                                                                                                                           সীলঃ

 

 

 

 

 

 

 

২০১৯-২০ অর্থ বছরের এডিপিতে প্রস্তাবিত বরাদ্দবিহীন অননুমোদিত নতুন প্রকল্পের সংক্ষিপ্ত সার

 

১।

মন্ত্রণালয়/বিভাগের নাম

:

 

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ।

২।

বাস্তবায়নকারী সংস্থা

:

 

ইলেক্ট্রনিক স্বাক্ষর সার্টিফিকেট প্রদানকারী কর্তৃপক্ষের নিয়ন্ত্রক (সিসিএ)-এর কার্যালয়।

৩।

সেক্টর

:

 

আর্থ-সামাজিক ভৌত অবকাঠামো

৪।

সাব-সেক্টর

:

 

আইসিটি

৫।

প্রকল্পের নাম

:

বাংলায়

ডিজিটাল স্বাক্ষর সার্টিফিকেট সংরক্ষনের জন্য কেন্দ্রীয় সংরক্ষাণাধার স্থাপন।

 

 

:

ইংরেজিতে

Establishment of Central Repository for Digital Signature Certificates.

৬।

বাস্তবায়নকাল

:

 

জুলাই, ২০২০ হতে জুন, ২০২২ পর্যন্ত।

৭।

প্রাক্কলিত ব্যয় (লক্ষ টাকায়)

:

 

মোট

জিওবি (বৈ:মু)

প্রকল্প সাহায্য (টাকাংশ)

প্রকল্প সহায্যের উৎস

৩৫০০.০০

-

-

জিওবি

 

৮।

অনুমোদন পর্যায়

:

 

প্রস্তাবিত নতুন প্রকল্প (সবুজ পাতায় অন্তর্ভুক্তির জন্য)

৯।

প্রকল্পের উদ্দেশ্য

:

 

ক) কেন্দ্রীয় ডিজিটাল স্বাক্ষর সার্টিফিকেট রিপোজিটরি স্থাপন;

খ) সার্টিফিকেট যাচাই পদ্ধতি সহজীকরণ;

গ) ইলেক্ট্রনিক রেকর্ড সংরক্ষণ কক্ষ স্থাপন;

১০।

ক) প্রকল্পের প্রধান প্রধান অঙ্গের বিবরণ

 

 

:

 

ক্রমিক নং

প্রধান অঙ্গের নাম

পরিমাণ (এককসহ)

অঙ্গের প্রাক্কলিত ব্যয় (লক্ষ টাকা)

1.

হার্ডওয়্যার

থোক

১৫০০.00

2.

সফট্‌ওয়্যার

থোক

১০০০.00

3.

কনসালটেন্সী (ফার্ম ও ব্যক্তি)

3টি

২৫০ .০০

 

১১।

প্রকল্প এলাকা

:

 

ইলেক্ট্রনিক স্বাক্ষর সার্টিফিকেট প্রদানকারী কর্তৃপক্ষের নিয়ন্ত্রক (সিসিএ)-এর কার্যালয়, আইসিটি টাওয়ার, আগারগাঁও, ঢাকা-১২০৭।

১২।

বৈদেশিক সাহায্যপুষ্ট প্রকল্প হলে বৈদেশিক সাহায্যপ্রাপ্তির সর্বশেষ অবস্থা

:

 

প্রযোজ্য নয়।

১৩।

ইতিপূর্বে এডিপিতে অন্তর্ভূক্ত/

বরাদ্দবিহীন ভাবে সংযুক্ত ছিল কিনা

:

 

না

১৪।

সপ্তম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনা ও এসডিজি এর কোন লক্ষ্যমাত্রার সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ

:

 

সপ্তম পঞ্চবাষির্কী পরিকল্পনা (অধ্যায়-১২, পৃষ্ঠা ৫৫৮, আলোচ্যসূচি-১২.২: তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি এবং অর্থনৈতিক উন্নয়ন: অনলাইন লেনদেন এবং পেমেন্ট অবকাঠামো)-তে e-governance ব্যবস্থাকে নিরাপদ সুরক্ষিত করার জন্য ডিজিটাল স্বাক্ষর ব্যবহারের কথা বলা হয়েছে। নিরাপদ অনলাইন ট্রানজেকশন বহুলাংশে নির্ভর করে জাতীয় PKI সিস্টেম এর উপর। সিসিএ কার্যালয় বাংলাদেশ রুট সিএ (PKI) বাংলাদেশ হিসাবে এ বিষয়ে দায়িত্বশীল কর্তৃপক্ষ। সিসিএ কার্যালয়ের কর্মকান্ডকে আরো গতিশীল করার জন্য তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইন ২০০৬ এর ধারা ১৮(৭) ও ২১ মোতাবেক সংরক্ষণাধার স্থাপন করে নিরাপদ ইলেক্ট্রনিক সাক্ষর নিশ্চিত করবে। কিছু গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ দরকার এবং এই উন্নয়ন প্রকল্প সিসিএ কার্যালয়ের মানব সম্পদ উন্নয়ন, অবকাঠামো উন্নয়ন এবং কারিগরি সক্ষমতা বৃদ্ধি করবে।

 

প্রকল্পের ফলাফল: i) সিসিএ কার্যালয়ের যাবতীয় ইলেক্ট্রনিক রেকর্ড সংরক্ষণ করা হবে; ii) সিএ কর্তৃক ইস্যুকৃত সকল ডিজিটাল স্বাক্ষর সার্টিফিকেট সংরক্ষণের জন্য একটি কেন্দ্রীয় রিপোজিটরি থাকবে; iii) জনগণ যেকোন প্রাপ্ত হতে অতি সহজে সার্টিফিকেট যাচাই করতে পারবে।

১৫।

দারিদ্র নিরসন ও কর্মসংস্থানের জন্য সরাসরি জড়িত কিনা

:

 

না

১৬।

জলবায়ু পরিবর্তন কার্যক্রম এর সাথে সম্পৃক্ত কিনা

:

 

না

১৭।

পিপিপি পদ্ধতিতে বাস্তবায়ন করা সম্ভব কিনা

:

 

না

১৮।

পিপিপি উদ্যোগে গৃহীত প্রকল্পের সহায়ক প্রকল্প কিনা

:

 

না

 

 

                                                                                                                        কর্মকর্তার স্বাক্ষরঃ  

                                                                                                                                           নামঃ আবুল মানসুর মোহাম্মদ সার্‌ফ উদ্দিন

                                                                                                                                        তারিখঃ ৯ এপ্রিল, ২০১৯

                                                                                                                                           সীলঃ

 

 

২০১৯-২০ অর্থ বছরের বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচীতে বরাদ্দবিহীন অননুমোদিত নতুন প্রকল্প প্রস্তাব

সেক্টর : আর্থ-সামাজিক ভৌত অবকাঠামো

সাব-সেক্টর : আইসিটি

উদ্যোগী মন্ত্রণালয়/বিভাগ : তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্ত বিভাগ

সংস্থা : ইলেক্ট্রনিক স্বাক্ষর সার্টিফিকেট প্রদানকারী কর্তৃপক্ষের নিয়ন্ত্রক (সিসিএ)-এর কার্যালয়।

(লক্ষ টাকায়)

ক্রমিক নং

প্রকল্পের নাম ও বাস্তবায়নকাল

(প্রধান প্রধান অঙ্গসহ)

প্রকল্পের ব্যয়

প্রকল্প সাহায্যের উৎস

অনুমোদন পর্যায়সহ মন্ত্রণালয়/বিভাগের মতামত

পরিকল্পনা কমিশনের সংশ্লিষ্ট সেক্টর বিভাগের মতামত

মোট (বৈ: মু:)

টাকা

প্রকল্প সাহায্য (টাকাংশ)

১।

প্রকল্পের নাম: সিসিএ কার্যালয়ে সিএ মনিটরিং সিস্টেম স্থাপন এবং নিরাপত্তা বিধান।

বাস্তবায়নকাল: ০১ জানুয়ারি, ২০১৯ হতে ৩০ জুন, ২০২০ পর্যন্ত।

-

৪৫৭৩.৮৬

-

জিওবি

প্রকল্পটি পরিকল্পনা কমিশনে অনুমোদিত হয়েছে।

-

২।

প্রকল্পের নাম: মোবাইল পিকেআই সিস্টেম স্থাপন।

বাস্তবায়নকাল: জুলাই, ২০১৯ হতে জুন, ২০২১ পর্যন্ত।

-

৪৭৪.৪৯

-

জিওবি

প্রকল্পের সম্ভাব্যতা যাচাই এর নিমিত্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটি কর্তৃক সম্ভাব্যতা যাচাই-কার্যক্রম চলমান রয়েছে।

-

৩।

ইলেক্ট্রনিক স্ট্যাম্পিং বাস্তবায়ন প্রকল্প।

বাস্তবায়নকাল: জুলাই, ২০১৯ হতে জুন, ২০২২ পর্যন্ত।

 

১৪৩১.৮৩

 

জিওবি

প্রকল্পের জনবল কাঠামো অনুমোদনের জন্য অর্থ মন্ত্রণালয়ে প্রেরণ করা হয়। উক্ত সভার সিদ্ধান্ত মোতাবেক বিগত ১৮/১২/২০১৬ খ্রি: তারিখে তৎকালীন সিনিয়র সচিব, অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগ বর্তমানে মূখ্যসচিব জনাব মোঃ নজিবুর রহমানের সভাপতিত্বে সংশ্লিষ্ট অংশীজনদের নিয়ে একটি সভা অনুষ্ঠিত হয় এবং প্রকল্পটি গ্রহণের বিষয়ে সম্মতি প্রদান করা হয়। তবে এ প্রকল্পের বিষয়ে অর্থমন্ত্রীর সম্মতি গ্রহণের প্রয়োজন রয়েছে মর্মে উল্লেখ করেন। সেপ্রেক্ষিতে অর্থমন্ত্রীর সম্মতি গ্রহণের জন্য প্রস্তাব প্রেরণ করা হয়। আইসিটি বিভাগ কর্তৃক এ প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের মাননীয় প্রতিমন্ত্রী মহোদয় বিগত ১২.০৩.২০১৯ খ্রি: তারিখে মাননীয় অর্থ মন্ত্রী বরাবর একটি আধা সরকারি পত্র প্রেরণ করেন। 

-

৪।

ডিজিটাল স্বাক্ষর সার্টিফিকেট সংরক্ষনের জন্য কেন্দ্রীয় সংরক্ষাণাধার স্থাপন।

বাস্তবায়নকাল: জুলাই, ২০২০ হতে জুন, ২০২২ পর্যন্ত।

-

৩৫০০.০০

  •  

জিওবি

প্রস্তাবিত নতুন প্রকল্প (সবুজ পাতায় অন্তর্ভুক্তির জন্য)

-

৫।

বাংলাদেশের নিজস্ব নিরাপদ ব্রাউজার এবং সার্চ ইঞ্জিন উন্নয়ন।

বাস্তবায়নকাল: জুলাই, ২০২১ হতে জুন, ২০২৬ পর্যন্ত।

-

৮০০০০.০০

-

জিওবি

প্রস্তাবিত নতুন প্রকল্প (সবুজ পাতায় অন্তর্ভুক্তির জন্য)

-

৬।

সিসিএ কার্যালয়ে বহুতল বিশিষ্ট নিজস্ব অফিস ও আবাসিক ভবন নির্মাণ ।

বাস্তবায়নকাল: জুলাই, ২০২১ হতে জুন, ২০২৬ পর্যন্ত।

-

২০০০০.০০

-

জিওবি

প্রস্তাবিত নতুন প্রকল্প (সবুজ পাতায় অন্তর্ভুক্তির জন্য)

-

 

 


Share with :

Facebook Facebook