মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ১st এপ্রিল ২০১৫

ডিজিটাল স্বাক্ষর কি?

১. সত্যিকার অর্থে ডিজিটাল স্বাক্ষর কি?

উত্তরঃ সাধারনত হস্তলিখিত কোন স্বাক্ষরকে স্ক্যান করে কোন প্রিন্টেড ডকুমেন্টে সংযুক্ত করার মাধ্যমে ধরে নেওয়া হয় উক্ত ডকুমেন্ট যথাযথ প্রেরকের কাছ হতে উৎপত্তি হয়েছে। সত্যিকার অর্থে এটি ডিজিটাল স্বাক্ষর নয়। ডিজিটাল স্বাক্ষর ইলেক্ট্রনিক মেসেজ এর মত একই কার্য সম্পাদন করে। ডিজিটাল স্বাক্ষর হল  একটি মেসেজ ডাইজেস্টে’র এনক্রিপ্টেড ভার্সন যা একটি মেসেজ’র সাথে একত্রে সংযুক্ত থাকে। একটি নিরাপদ ডিজিটাল  স্বাক্ষর দু’টি অংশ নিয়ে গঠিতঃ

                        - নিজের জন্য গোপনীয় চাবি (প্রাইভেট কী), যা দ্বারা ডিজিটাল স্বাক্ষর সৃষ্টি করা হয়।

                    - সবার জন্য উন্মোচনের চাবি (পাবলিক কী), যা দ্বারা ডিজিটাল স্বাক্ষর যাচাই করা হয়।

একটি  ডকুমেন্টে ডিজিটাল স্বাক্ষর ব্যবহার পদ্ধতিতে যেকোন জালিয়াতি ধরা সম্ভব  এবং এ পদ্ধতিতে যথাযথ ব্যক্তি দ্বারা স্বাক্ষরিত হয়েছে কিনা তা সহজেই যাচাই করা যায়। দু’টি চাবি যেমনঃ সবার জন্য উন্মোচনের চাবি (পাবলিক কী) এবং নিজের জন্য গোপনীয় চাবি (প্রাইভেট কী) দ্বারা ডিজিটাল স্বাক্ষর পদ্ধতি সম্পন্ন হয়। প্রেরক যে দলিল পাঠাবেন তা কম্পিউটার প্রোগ্রাম ব্যবহার করে হ্যাশ তৈরী করেন, তারপর তার গোপনীয় চাবি দিয়ে উক্ত হ্যাশটিকে ডিজিটাল স্বাক্ষরে পরিণত করেন। তারপর স্বাক্ষর যুক্ত দলিল প্রাপকের কাছে পাঠিয়ে দেন।

প্রাপক কম্পিউটার প্রোগ্রাম দ্বারা প্রাপ্ত দলিলকে হ্যাশে পরিণত করেন এবং প্রেরকের পাবলিক চাবি দ্বারা স্বাক্ষর থেকেও হ্যাশ বের করেন। দুইটি হ্যাশ এক হলে শনাক্তকরণ নিশ্চিত হয়।

এভাবেই ডিজিটাল স্বাক্ষরের মাধ্যমে নিরাপদে দলিলপ্রেরিত হয়।


Share with :